তোদিন স্মার্টফোন আর কম্পিউটার ব্যবহার করে কি উপলব্ধি করলেন? —হ্যাঁ, কোয়ালিটি আমাদের অভ্যাস! আমরা কোয়ালিটি আর অ্যাডভানস জিনিষ পছন্দ করি। এইতো ২০০৬-২০০৭ এর কথা, যখন ফোনে আর কম্পিউটারে চরমরা কোয়ালিটির (২৪০পি) ভিডিও দেখেই খুশি থাকতাম। কিন্তু আজ সর্বনিম্ন ১০৮০পি রেজুলেসন চাই, ৪কে হলে তো কথায় নেই! কোডেক, কন্টেনার আর্টিকেল থেকে নিশ্চয় জেনেছেন, শুধু রেজুলেসনের উপর কোয়ালিটি আসে না; আরো বহু ব্যাপার রয়েছে যার উপর ভিত্তি করে তবেই ভিডিও কোয়ালিটিতে উন্নতি দেখতে পাওয়া যায়। তার মধ্যে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ টার্ম গুলো হচ্ছে ভিডিও কোডেক, কন্টেনার, ফ্রেমরেট, ভিডিও বিটরেট ইত্যাদি। ভিডিও কমপ্রেশনের ক্ষেত্রে কোন অ্যালগরিদমে কমপ্রেস করা থাকবে সেটা নির্ভর করে কোডেকের উপর। যতো উন্নত কোডেক ততো অ্যাডভান্সড অ্যালগরিদম ব্যবহার হয় সেখানে, আর ততো কোয়ালিটি পাওয়া সম্ভব।

আজকের সবচাইতে জনপ্রিয় ভিডিও কোডেক H.264 (এইচ.২৬৪) যেটা আজকের অলমোস্ট যেকোনো ডিভাইজ এবং ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট গুলো আরামে সমর্থন করে। কিন্তু আরেকটি অ্যাডভান্স কোডেক অলরেডি মার্কেটে চলে এসেছে, H.265 (এইচ.২৬৫); নিঃসন্দেহে একটি ফিউচার প্রুফ কোডেক, কেন? সমস্ত মনোযোগ আর্টিকেলটিতে লাগিয়ে পড়তে থাকুন, বিস্তারিত জেনে যাবেন!

H.265 কি?

H.265 একটি ভিডিও কোডেক, যার আরেকটি নাম এইচইভিসি (HEVC) বা হাই এফিসিএন্সি ভিডিও কোডিং (High Efficiency Video Coding)। এটি সম্পূর্ণ নতুন একটি ভিডিও কোডেক, কোন ভিডিও কিভাবে এনকোডিং বা ডিকোডিং করা হবে সেটার তথ্য গুলো কোডেকের মধ্যে থাকে। ভিডিও’র মধ্যে ফ্রেমগুলো কিভাবে দেখানো হবে, পিকচার কোয়ালিটি, কালার ইত্যাদি সবকিছু তথ্য আপনার কম্পিউটার কোডেক থেকে সংরক্ষন করে। যখন ভিডিও রেজুলেসন বেড়ে যায়, ধরুন ৪কে ভিডিও’র কথা তখন আরোবেশি ডিটেইল থাকা প্রয়োজনীয় হয়ে পরে ঐ ভিডিও ফাইলটিতে, এতে গ্রেট কোয়ালিটি পাওয়া সম্ভব হয়। অবশ্যই H.264 একটি দক্ষ কোডেক, কিন্তু H.265 তে আরো উন্নতি আনা হয়েছে।

H.265 তে আরো অ্যাডভান্সড কমপ্রেশন টেকনিক ব্যবহার করা হয়। একে আরোবেশি রেটে কমপ্রেস করা যাবে, কিন্তু তারপরেও প্রায় সেম তথ্য সেখানে স্টোর করা যাবে। সহজ ভাষায় বলতে গেলে, H.264 এর একটি ভিডিও ৫০ মেগাবাইট সাইজ নিয়ে যে কোয়ালিটি প্রদান করতে সক্ষম সেখানে H.265 এর ভিডিও ২৫ মেগাবাইট সাইজে একই কোয়ালিটি প্রদান করবে। যদি একই বিটরেট এবং একই সাইজের ভিডিও কমপ্রেস করা হয়, সেখানে H.265 ভিডিওতে বেটার লুক পাওয়া যাবে। H.264 ভিডিও কোডেক কেবল ১৬×১৬ পিক্সেল মাইক্রোব্লক প্রদর্শিত করতে পারে, যেটা হাই রেজুলেসন ভিডিও যেমন- ৪কের জন্য অনেক ছোট সাইজ, কিন্তু H.265 ৬৪×৬৪ পর্যন্ত পিক্সেল মাইক্রোব্লক (যেটাকে কোডিং ট্রি ইউনিট বলা হয়) সমর্থন করে, যেটা হাই রেজুলেসন ভিডিও’র ক্ষেত্রে অত্যন্ত দক্ষ।

ভিডিও কোডেক

ভিডিওতে যখন কোন ফ্রেমের পিক্সেলে মুভমেন্ট দেখতে পাওয়া যায় না, তখন আগের পিক্সেল থেকে রেফারেন্স নিয়ে পরবর্তী পিক্সেল প্রদর্শিত করা হয়, তখন নতুন কোন পিক্সেল আর জেনারেট করে না, এভাবে কোডেক ভিডিও সাইজ কমিয়ে দেয়। মনে করুণ, আপনি আপনার ভিডিও ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন করে শুধু পেছনে স্ট্যাটিক ইমেজ লাগিয়ে রেখেছেন, সেক্ষেত্রে প্রত্যেকটি ফ্রেমে কোডেক নতুন নতুন পিক্সেল জেনারেট না করে একবার মাত্র পিক্সেল তৈরি করে আর সেই পিক্সেল থেকে রেফারেন্স নিয়ে সম্পূর্ণ ভিডিওতে বসিয়ে দেয়, এতে ফাইল সাইজ কমে যায়। H.265 তে আরো বেটার অ্যালগরিদম ব্যবহার করা হয়েছে, ফলে এটি পিক্সেল রেফারেন্স আগের থেকে আরোবেশি ভালো কোয়ালিটি তৈরি করতে পারে।

আগেই বলেছি, আজকের পৃথিবী হাই রেজুলেসনের দিকে ছুটছে, আর H.265 হাই রেজুলেসনের সাথে বেস্ট ফিট একটি কোডেক। এটি ৮কে পর্যন্ত রেজুলেসন সমর্থন করে বা বলতে পারেন ৮১৯২ পিক্সেল × ৪৩২০ পিক্সেল। যদিও আজকের মাত্র হাতে গোনা কয়েকটি ক্যামেরা এই রেজুলেসন সমর্থন করে, কিন্তু প্রযুক্তি যেভাবে বিস্তার লাভ করছে তাতে আমি জোর দিয়ে বলতে পারি, ৮কে থেকে আমরা আর খুববেশি দূরে নেই। আজকের বহুল ব্যবহৃত রেজুলেসন ১০৮০পি (ফুল এইচডি), তবে ৪কে বর্তমানে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে, আর ৮কে খুব দ্রুতই জনপ্রিয়তার খাতায় নাম লেখাবে, সেক্ষেত্রে H.265 ই হবে কোডেক স্ট্যান্ডার্ড!

কেন এই নতুন কোডেক অত্যন্ত প্রয়োজনীয়?

নতুন কোডেক

কয়েক বছর ধরে H.264 সবচাইতে জনপ্রিয় একটি কোডেক বিশেষ করে ভিডিও স্ট্রিমিং করার জন্য পারফেক্ট একটি কোডেক। পূর্বে যতো কোডেক ব্যবহৃত হতো, যেমন- DivX, XviD, Old Mpeg4; H.264 আসার পর থেকে এদের একেবারে ছুটি হয়ে গিয়েছে। কন্টেনারের ক্ষেত্রেও অনেকটা তাই, 3GP, AVI, FLV, WMV এই ফাইল গুলো কি আর দেখতে পান? MP4 আর MKV সকল কন্টেনারের জায়গা দখল করে নিয়েছে। যাই হোক, মূল বিষয়ে ফিরে আসা যাক; H.264 কে বর্তমান যেকোনো ডিভাইজ এবং ওয়েবসাইট সমর্থন করে, তাহলে কেন একে পরিবর্তন করার দরকার রয়েছে?

কর্মক্ষমতা হলো এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর। আমরা যেমন কোয়ালিটি পেতে পছন্দ করি, ঠিক তেমনটি জায়গা বাঁচানোও পছন্দ করি। চিন্তা করে দেখুন, আপনি আগের চেয়ে কম জায়গা খরচ করে আগের চেয়ে আরো বেটার কোয়ালিটি পেতে পারবেন। ফাইল সাইজ কমালে যে শুধু হার্ড ড্রাইভে কম স্পেস লাগবে তা কিন্তু নয়, আপনার ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথও কম খরচ হবে, কম ইন্টারনেট এবং লো স্পীড ইন্টারনেট ব্যবহার করেও সেম কোয়ালিটির ভিডিও দেখতে পারবেন। ভিডিও ডাউনলোড এবং আপলোড করার সময় কমে যাবে। ধরুন কোডেক “ক” আর কোডেক “খ” —একই কোয়ালিটির ইমেজ ডিসপ্লে করতে সক্ষম, কিন্তু কোডেক “ক” তে ফাইল সাইজ ৫০% কম, তবে অবশ্যই কোডেক “ক” বেশি দক্ষ, ঠিক আছে?

হার্ডওয়্যার সাপোর্ট

একটা কথা মেনে নিতেই হবে, ডিম্যান্ডের সাথে খরচও বেড়ে যায়; H.265 আরোবেশি কমপ্লেক্স অ্যালগরিদম ব্যবহার করে যেটার জন্য হাই কনফিগ হার্ডওয়ার এবং আগের চেয়ে আরোবেশি প্রসেসিং পাওয়ার প্রয়োজনীয়। একই সিস্টেমে H.264 এনকোড করতে যতোটা সময় লাগবে, H.265 এনকোড করতে তার ১০গুন বেশি সময় লাগতে পারে, কেনোনা এতে অনেক কমপ্লেক্স প্রসেসিং এর ব্যাপার রয়েছে। তো শুরুর দিকে একটু কষ্ট করতে হবে এই কোডেক’কে কিন্তু ধীরেধীরে যখন সকলের ডিভাইজ গুলো হাই কনফিগারের হয়ে যাবে, তো H.265 স্বয়ংক্রিয়ভাবে জনপ্রিয়তা পেয়ে যাবে।

বর্তমান জেনারেশনের ইনটেল প্রসেসর গুলো আরামে H.265 সমর্থন করে। ইনটেল ক্যাবি লেক (Kaby Lake) লাইনের প্রসেসর গুলোতে H.265 ভিডিও এর জন্য বিশেষ নির্দেশ সেট রয়েছে ভিডিও এনকোড এবং ডিকোড করার জন্য এবং অবশ্যই ইনটেল নেক্সট জেনারেশন প্রসেসর গুলোতেও বিশেষ H.265 সাপোর্ট থাকবে। তবে এর মানে এটা নয়, আপনি আলাদা প্রসেসর গুলোতে H.265 চালাতে পারবেন না, অবশ্যই পারবেন কিন্তু ক্যাবি লেক চিপ গুলো মাখনের মতো H.265 হ্যান্ডেল করতে পারবে।

এখনো পর্যন্ত H.265 ভিডিও কোডেক H.264 কোডেকের মতো ইউনিভার্সাল নয়, তাই খুব বেশি ডিভাইজ সাপোর্ট এক্ষেত্রে দেখতে পাবেন না, তবে জনপ্রিয়তার সাথে সাথে ডিভাইজ সাপোর্ট অবশ্যই বাড়বে। নতুন অ্যাপেল আইফোন এবং অপারেটিং সিস্টেম আইওএস ১১ সকল ভিডিও ফাইল গুলোকে H.265 তে স্টোর করবে। নিউ জেনারেশন ম্যাকবুক প্রো এবং যে কম্পিউটার গুলোতে ক্যাবি লেক চিপ রয়েছে, সেখানে H.265 ভালোভাবে চলবে। চিন্তা করার কারণ নেই, উইন্ডোজ ১০ এ ইতিমধ্যে H.265 সাপোর্ট যুক্ত করে দেওয়া হয়েছে এবং জনপ্রিয়তার সাথে সাথে ভিডিও স্টিমিং সাইট গুলোতেও H.265 প্রধান কোডেক হিসেবে ব্যবহৃত হতে আরম্ভ করবে।


তো বুঝতে পারলেন, কেন H.265 নেক্সট জেনারেশন ভিডিও কোডেক হতে চলেছে? যখন H.265 কোডেক H.264 থেকে বেটার কিছু প্রদান করছে, তো কেন আমরা পুরাতন স্ট্যান্ডার্ড নিয়েই পড়ে থাকবো? আশা করছি আর্টিকেলটি আপনার জন্য অনেক উপকারি ছিল এবং আপনি এই নতুন কোডেকটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারলেন। তো আপনার কি মনে হয়? H.264 জনপ্রিয়তা পেতে আর কতো বছর লাগতে পারে? —অবশ্যই আমাকে নিচে কমেন্ট করে জানান!

ইমেজ ক্রেডিট; Shutterstock এবং Cnet

Posted by তাহমিদ বোরহান

প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

14 Comments

  1. bhai apni ar apnar post duitai 10000% unique!!!!! LOVE U LOVE U Bhai

    Reply

  2. Vaia you are the best, vaia jokhon ekta pc te ekta game run kore tokhon pc er protita part jemon ram ,cpu ,gpu kivabe kaj kore? Please eita nie ekta article post koren vaia.ami jani apni chara eto shohoj kore keu bujhaite parbo na. Thank you

    Reply

  3. Vaia ei request ta please rakhen.and again saying you are the only one who can decribe it.

    Reply

  4. Vai apni to kono response korlen na

    Reply

    1. ভাই, একটু সময় দিতে হবে, আমি শিডিউল অনুসারে কাজ করি। যখন কেউ কোন রিকোয়েস্ট করে আমি সেটাকে শিডিউলে জুড়ে দেয়। অবশ্যই আপনার রিকোয়েস্ট’কে আমি শ্রদ্ধা করি। আপনাদের জন্যই তো লিখি তাই না ভাইয়া! আশা করি বুঝতে পেড়েছেন, সাথেই থাকুন ভাইয়া! 🙂

      Reply

  5. বর্তমান সময়ের পপ আপ এড এর যুগে বাংলা ভাষায় এরকম আর্টিকেল সত্যিই গুপ্তধন খুজে পাওয়ার মত ব্যাপার।
    অসাধারন সব পোস্ট।
    থ্যাংকস টু এডমিন।
    আরো পোস্ট চাই।

    Reply

    1. ধন্যবাদ!
      এই ব্লগ কখনোই টাকার উপর টার্গেট করে কাজ করে না, সবসময় কোয়ালিটি আর কনটেন্টের উপর কাজ করে!

      Reply

  6. দারুণ বিশ্লেষণধর্মী পোস্ট। প্রযুক্তির বিভিন্ন আপডেট সম্পর্কিত পোস্ট নিয়মিত চাই।
    অনেক ধন্যবাদ এরকম লেখা উপহারের জন্য। ‘টেকহাবস’এর সাথেই আছি।

    Reply

  7. Just FANTASTIC!!!!!!!!!!!! Apnar moto emon teacher paowa sotti khub luck er…..

    Reply

  8. World class Explained bro. You are the legend. The tech king in bd. No doubt.

    Reply

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *