প্রযুক্তির জটিল টার্মগুলো কি আপনাকে বিভ্রান্ত করছে? কিছুতেই কি আপনার মস্তিষ্কে পাল্লা পড়ছে না? তাহলে বন্ধু, আপনি এবার সঠিক জায়গায় এসেছেন—কেনোনা এখানে আমি প্রযুক্তির সকল জটিল বিষয় গুলো ভাঙ্গিয়ে সহজ পানির মতো উপস্থাপন করার চেষ্টা করি, যাতে সকলে সহজেই সকল টেক টার্ম গুলো বুঝতে পারে।

মরা যখনই নতুন ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ কেনার কথা ভাবি, তখনই মাথায় আসে কম্পিউটার প্রসেসর এর কথা। যে কোন প্রসেসরটি সবচাইতে ভালো হবে। কোর i3 না কোর i5 না কোর i7? যাইহোক, আশাকরি আজকের এই পোস্টটিতে আপনার সব প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন আজ। দেখুন আমরা যখন ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ কিনি বা কিনতে যাই তখন বিভিন্ন প্রসেসর দেখতে পাই। যেমন, i3, i5, i7। শুধু কিন্তু তা না। এখানে আবার বিভিন্ন জেনারেশন এর কথা ও থাকে। যেমন, ৪র্থ জেনারেশন কিংবা ৫ম জেনারেশন।তো বুঝতেই পারছেন একের পর এক বিষয় নিয়ে আলোচনা করার দরকার আছে। না হলে সব গুলিয়ে যাবে। তাহলে শুরু করা যাক।

নোট- কম্পিউটার প্রসেসর সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে নিচের ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন;

যদি আপনি পড়তে ভালোবাসেন, তো নিচ থেকে আর্টিকেলটি বিস্তারিত পড়তে আরম্ভ করুণ;

কম্পিউটার প্রসেসর এর জেনারেশন বৃত্তান্তঃ

কম্পিউটার প্রসেসরসবচেয়ে প্রথমে কম্পিউটার প্রসেসর এর জেনারেশন নিয়ে কথা বলি। ইনটেল প্রতি বছর নতুন জেনারেশন মুক্তি প্রদান করে। এখন প্রশ্ন হলো যে এই জেনারেশন জিনিসটি কি? আসলে জেনারেশন হলো, ইনটেল প্রতি বছর যে প্রসেসর তৈরি করে তার উৎপাদন টেকনিক কতটা উন্নত এবং কতটা ছোট। আসুন বিষয়টিকে আরো পরিষ্কার করে বোঝানোর চেষ্টা করি। একটি সাধারন প্রসেসর এর ভেতরে লক্ষ্য লক্ষ্য এবং কোটি কোটি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ট্র্যান্সিস্টর (Transistor) লাগানো থাকে। ইনটেল প্রত্যেক বছরে অর্থাৎ প্রসেসর এর প্রতিটি নতুন জেনারেশন এ এই ট্র্যান্সিস্টর গুলো কতো বেশি ক্ষুদ্র করে বানিয়েছে তা প্রকাশ করে। কম্পিউটার প্রসেসর এর ট্র্যান্সিস্টর গুলো যত বেশি ক্ষুদ্র হবে ততো বেশি দ্রুত গতি সম্পূর্ণ হবে, ততো বেশি দক্ষ হবে এবং কম পাওয়ার ব্যবহার করবে।

বর্তমানে সবচাইতে আধুনিক কম্পিউটার প্রসেসর এর ট্র্যান্সিস্টর এর মাপ হলো ১৪ ন্যানো মিটারস। কয়েক বছর আগে ২০ ন্যানো মিটারস ছিল এবং বেশ কয়েক বছর আগে ২৮ ন্যানো মিটারস ছিলো, তার আগে ১০০, ১৫০ ইত্যাদি ছিলো। তো দেখতে পাচ্ছেন এই ট্র্যান্সিস্টর এর মাপ কয়েক বছরে ধিরে ধিরে কমতে কমতে আজকের এই ১৪ ন্যানো মিটারস এ পৌঁছিয়েছে। এখন যদি আপনি আমাকে প্রশ্ন করেন যে, ৪র্থ জেনারেশন উত্তম না ৫ম জেনারেশন না ৬ষ্ঠ? দেখুন এতে কোনো সন্দেহ নেই যে যত আধুনিক জেনারেশন এর প্রসেসর হবে ঠিক ততোটাই উন্নত প্রসেসর হবে। কেনোনা সর্বাধুনিক জেনারেশন এর প্রসেসর এ ট্র্যান্সিস্টর সবচেয়ে ক্ষুদ্র হবে। এবং আমি আগেই বলেছি ট্র্যান্সিস্টর গুলো যত বেশি ক্ষুদ্র হবে ততো বেশি দ্রুত গতি সম্পূর্ণ হবে, ততো বেশি দক্ষ হবে এবং কম পাওয়ার ব্যবহার করবে। তাহলে সর্বাধিক কর্মক্ষমতা পাওয়ার জন্য সর্বাধুনিক জেনারেশন এর প্রসেসর ক্রয় করতে হবে এতে কোনো সন্দেহ নাই।

কম্পিউটার প্রসেসর i3, i5, i7

সাধারন ভোক্তা বাজারে ইনটেল প্রসেসরকে মোট তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে। ইনটেল কোর i3, ইনটেল কোর i5, এবং ইনটেল কোর i7। এখানে ইনটেল কোর i3 যে প্রসেসরটি আছে তা প্রাথমিক একটি প্রসেসর। এর নিজের যে প্রসেসর গুলো আছে যেমন: পেন্টিয়াম বা সেলেরন, এই প্রসেসর গুলো নিয়ে এখানে কথা বলবো না।

যাই হোক, এখন ইনটেল কোর i3 প্রসেসর এর কথা যদি আপনাকে বলি তাহলে, আপনি একটি Dual Core প্রসেসর পাবেন। সেটা আপনি ল্যাপটপ এর জন্য কিনুন কিংবা ডেক্সটপ এর জন্য। এতে আপনি Hyperthreading সক্রিয় পাবেন। এর ফলে আপনি আপনার ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ এ যে Operating System ব্যবহার করবেন সেই Operating System আপনার i3 প্রসেসরটিকে Hyperthreading সক্রিয় থাকায় Quad Core হিসেবে ব্যবহার করবে। এবং আপনি ভালো কর্মক্ষমতা উপভোগ করতে পারবেন। তাছাড়াও আপনি বাজারে  ইনটেল কোর i3 প্রসেসর এর আবার অনেক মডেল দেখতে পাবেন। যেমনঃ ৪১৩০, ৪২২০ ইত্যাদি। এখন এই মডেল গুলো কি? এখন আলাদা আলাদা মডেল এর প্রসেসর এ আলাদা আলাদা Clock স্পীড দেখতে পাওয়া যাবে। এর মানে প্রসেসর এর যে ফ্রিকোয়েন্সি থাকে, মনে করুন ২.১ অথবা ২.৩ অথবা ২.৯, এই ফ্রিকোয়েন্সি এর পরিবর্তন মডেল গুলোর পরিবর্তন এর সাথে ঘটে থাকে। প্রসেসর এর মডেল, ফ্রিকোয়েন্সি ছাড়াও আরেকটি অংশ থাকে সেই অংশটিকে আমরা বলে থাকি ক্যাশ মেমোরি। এই ক্যাশ মেমোরির পরিমান একেবারেই ছোট হয়ে থাকে। কোনো প্রসেসর এর ক্যাশ মেমোরির ৩ এমবি হয় আবার কোনো প্রসেসর এর ক্যাশ মেমোরির ৬ এমবি হয়। তো এই ক্যাশ মেমোরির কি? আজ আমি ক্যাশ মেমোরির নিয়ে এখানে আলোচনা করছি না, কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি ক্যাশ মেমোরির নিয়ে একটি পোস্ট লিখব আশা করছি। তবে এটুকু মনে রাখেন যে ক্যাশ মেমোরির যত বেশি, ততোই ভালো।

চলুন এবার কথা বলা যাক ইনটেল কোর i5 প্রসেসর নিয়ে। ল্যাপটপ এর সাথে যে ইনটেল কোর i5 প্রসেসর পাওয়া যায় সেটি হয় Dual Core এবং যে প্রসেসরটি ডেক্সটপ এর সাথে পাওয়া যায় সেটি হলো Quad Core। যদি ডেক্সটপ এর কথা বলি তবে এর মধ্যে Hyperthreading সক্রিয় থাকে না, কিন্তু ল্যাপটপ এ Hyperthreading সক্রিয় থাকে। অর্থাৎ আপনার ২ কোর এর প্রসেসরটিকে ল্যাপটপ এর Operating System ৪ কোর হিসেবে দেখতে ও ব্যবহার করতে পারবে। এখন এই যে প্রসেসর এটি ইনটেল কোর i3 থেকে ভালো, এতে আপনি বেশি ক্যাশ মেমোরি পাবেন এবং এর স্পীড ও বেশি হবে এবং এর যে কর্মক্ষমতা সেটিও ইনটেল কোর i3 প্রসেসর থেকে বেশি পাবেন।

ইনটেল কোর i7 প্রসেসরটি হলো বাজারের ভোক্তাগনদের জন্য সর্ব শ্রেষ্ঠ প্রসেসর। এটি তিন ভাবে পাওয়া যায়। সাধারন ল্যাপটপ এ Dual Core থাকে, উন্নত মানের ল্যাপটপ গুলোতে যেমন, ম্যাকবুক বা এলিয়েন ওয়্যার সিরিজের ল্যাপটপ গুলোতে Quad-Core থাকে এবং ডেক্সটপ গুলোতে Quad-Core বা Octa-Core থাকে। এই প্রসেসর এ Hyperthreading সক্রিয় থাকে। যাতে করে Operating System দিগুন কোর দেখতে পায়। এবং সে হিসেবে কাজ করে। ইনটেল কোর i7 প্রসেসর এ সর্বাধিক ক্যাশ মেমোরির দেখতে পাওয়া যায়। আপনি ৮ এম্বি পর্যন্ত ক্যাশ মেমোরির পেতে পারেন। আগেই বলেছি যে ক্যাশ মেমোরির যত বেশি, ততোই ভালো।

কম্পিউটার প্রসেসর, i3, i5, i7 কখন কোনটা আপনি ব্যবহার করবেন?

আপনি যদি একজন সাধারন ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন। যেমন ধরুন আপনি ইন্টারনেট ব্যবহার করতে চান কিংবা মাইক্রোসফট অফিস এর কাজ করবেন অথবা হালকা গেম খেলতে চান এবং সাথে মুভিজ, মিউজিক উপভোগ করতে চান তবে ইনটেল কোর i3 প্রসেসর আপনার জন্য ভালো হবে। আপনাকে অঝতা টাকা খরচ করে ইনটেল কোর i5 বা ইনটেল কোর i7 প্রসেসর কিনতে হবে না।

এখন আপনি যদি মধ্যম মাপের ব্যবহারকারী হোন। যেমন মনে করুন আপনি ফটো সম্পাদন করবেন অথবা বেশ কিছু মাল্টিটাস্ক করবেন তবে আপনার জন্য ইনটেল কোর i5 প্রসেসরটি ভালো হবে। তাছাড়া শুধু নাম দেখে প্রসেসর ক্রয় করা থেকে বিরত থাকবেন। প্রসেসর কেনার সময় এর মডেল দেখবেন, এর জেনারেশন দেখবেন, ক্যাশ মেমোরির ইত্যাদি পর্যবেক্ষণ করে তবেই প্রসেসর নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেবেন।

আগেই বলে রাখি আপনি যদি অনেক অগ্রসর ব্যবহারকারী না হয়ে থাকেন তবে ইনটেল কোর i7 প্রসেসর আপনার কোনো কাজের না। আপনি যদি হাই-কোয়ালিটি ভিডিও রেন্ডার করতে চান অথবা 3D রেন্ডার করতে চান কিংবা হাই-কোয়ালিটি গেমিং করার কথা ভাবেন, তাহলে শুধু তখনই কম্পিউটার প্রসেসর ইনটেল কোর i7 এর প্রয়োজন পরবে আপনার।

কম্পিউটার প্রসেসর এর জেনারেশন চেনার উপায়

কম্পিউটার প্রসেসর এর জেনারেশন প্রসেসরটির মডেল থেকেই চেনা যেতে পারে। প্রসেসর কেনার সময় এর জেনারেশন দেখে কেনাটা আবশ্যক তাই জেনারেশন চেনারও গুরুত্ব থাকে। মনে করুন একটি প্রসেসর এর মডেল ইনটেল কোর i7 ৭৭০ এবং আরেকটি প্রসেসর এর মডেল ইনটেল কোর i7 ৭৭০। এখানে প্রথম প্রসেসরটি ৪র্থ জেনারেশন এবং দ্বিতীয় প্রসেসরটি ৫ম জেনারেশন। লক্ষ করলে দেখতে পাবেন যে এর জেনারেশন সংখ্যা এর মডেল সংখ্যার প্রথম সংখ্যা। এভাবেই আপনি খুব সহজেই কম্পিউটার প্রসেসর এর জেনারেশন চিনতে পারবেন।

শেষ কথা

তো এই ছিল আজকের বিষয়। আশা করি আপনাদের পরিপূর্ণ ভাবে বোঝাতে সক্ষম হয়েছি। এখন থেকে যখন বাজারে যাবেন আপনার ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ কিনতে কিংবা বন্ধুরটি কিনতে, তখন আশা করি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। এবং আশা করি খুব ভালো ফলাফল পাবেন আপনার কাজের প্রতি। এই পোস্টটি ভালো লেগে থাকলে অবশ্যয় শেয়ার করবেন। সাথে এই সাইটটি নিয়মিত ভিসিট করবেন, কেনোনা আমি প্রতিদিন নতুন নতুন বিষয়ে লেখালেখি করি। তাই নিয়মিত ভিসিট করার অবশ্যই মূল্য রাখে। আপনাদের এই পোস্টটি কেমন লেগেছে তা নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। সাথে কোনো প্রশ্ন থাকলে নির্দ্বিধায় জানাবেন। এই সাইটটির ইংরেজি সংস্করণ ও আছে তা আপনি চাইলে এখান থেকে দেখতে ও পড়তে পারেন। পরিসেসে সকলের শুভ কামনা করছি।

আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে?

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রবেশ করিয়ে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন, যাতে আমি নতুন আর্টিকেল পাবলিশ করার সাথে সাথে আপনি তা ইনবক্সে পেয়ে যান!

টেকহাবস কখনোই আপনার মেইলে স্প্যাম করবে না, এটি একটি প্রতিজ্ঞা!

Comments

  1. আমি সফটওয়্যার ইন্জিনিয়ারীং করব। তাই ডেক্সটপ কম্পিউটার কিনব ভাবছি। আমার জন্য কোন ধরনের কম্পিউটার ভাল হবে..?

    1. যদি আপনি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং করার কথা ভাবেন তবে আপনার কাজে ব্যবহৃত ল্যাপটপ বা ডেক্সটপটির প্রসেসরের দিকে প্রধান লক্ষ্য রাখতে হবে। আপনাকে ভিজুয়াল স্টুডিও সহ অনেক ডাটাবেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম নিয়ে কাজ করতে হতে পারে, আর এতে প্রয়োজন অনেক কম্পিউটিং এবং প্রসেসিং পাওয়ারের, ফলে আমি বলবো আই৭ প্রসেসর কিনতে, তবে না হলেও আই৫ প্রয়োজনীয়।
      তবে বেসিক প্রোগ্রামিং যেমন C বা জাভা এতে খুব হাই কম্পিউটিং পাওয়ার লাগে না।
      ৮ জিবি র‍্যাম সর্বনিম্ন থাকতেই হবে, তবে ১২জিবি বা ১৬জিবি হলে বেশি ভালো হয়। যদি গেম ডেভেলপমেন্ট করার কথা ভাবেন তবে গ্রাফিক্সকার্ড প্রয়োজনীয়, না হলে তেমন একটা গুরুত্ব নেই।
      হাইব্রিড হার্ডড্রাইভ থাকলে বেশি ভালো হয়, এই পোস্টটি পড়ুন- https://bn.techubs.net/এসএসডি-বনাম-এইচডিডি/
      সর্বনিম্ন ৫০০জিবি স্পেস দরকার, তবে ১টিবি হলে ভালো হয়। আপনাকে অনেক ব্যাকআপ রাখার প্রয়োজন পড়তে পারে।
      মনিটরের চাহিদা তেম্ন একটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, তবে রিয়াল ওয়ার্ক স্টেশন বানাতে চাইলে ডুয়াল মনিটর ব্যবহার করতে পারেন।

      কাজ চালানোর মতো পিসি বিল্ড করতে চাইলে-

      আই৫ প্রসেসর
      ৮ জিবি র‍্যাম
      অবশ্যই একটি এসএসডি যদি পারেন হাইব্রিড ড্রাইভ
      ১৫-১৭ ইঞ্চি মনিটর
      গ্রাফিক্স কার্ড নিলে ভালো, ব্যাট না নিলে সমস্যা নাই।

      আশা করি আপনার প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছেন 🙂 ধন্যবাদ 🙂

  2. আমি MBA করবো ।আমার জন্য কোন লেপটপ টি ঠিক হবে এবং তা কোন Brandar
    ভালো হবে এবং কত দামের নেব

    1. এমবিএ এর নতুন সেমিস্টারে ওঠার পরে নতুন টাস্ক গুলো সম্পূর্ণ করার জন্য ল্যাপটপ থাকা আবশ্যক। আপনার একটি লাইট ওয়েট ল্যাপটপ দরকার যা আপনি ক্লাসেও ব্যবহার করতে পারবেন।
      আজকের দিনে আমার মতে, যেকোনো প্রয়োজনেই ৮জিবি র‍্যাম থাকাটা আবশ্যক, তবে এখনকার বেশিরভাগ বাজেট ল্যাপটপেই ৮জিবি র‍্যাম থাকে। আপনার কাজের জন্য আই৩ প্রসেসর হলেও সমস্যা নেই, তবে আই৫ হলে ভালো হয়। ল্যাপটপ ছোট খাট এবং স্টাইলিশ হলে ভাওল হয়, কেনোনা আপনি এটিকে বহন করবেন। স্ক্রীন রেজুলেসন ১৯২০x১০৮০ হলে উত্তম, এতো ভালো পারফর্মেন্স পাবেন। স্পেসের উপর তেমন লক্ষ্য রাখার প্রয়োজন নেই, তবে এসএসডি থাকলে ভালো হয়।
      সত্যি বলতে, আপনি ক্রোমবুক দিয়েও কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন।
      https://bn.techubs.net/ক্রোমবুক-বৃত্তান্ত/

      ব্র্যান্ডের কথা বলতে, প্রথমে আসুসের দিকে দেখতে পারেন,
      যদি ভালো না লাগে, ডেল দেখতে পারেন…
      পরে, এইচপি বা লেনেভো দেখতে পারেন।

      আপনার ল্যাপটপ ৩০-৩৫ হাজার বাজেটের ভেতরই হয়ে যাবে। তবে ৪০ লাগতে পারে (আপনার পছন্দের মডেলের উপর নির্ভর করবে)।

      ধন্যবাদ 🙂
      আরো কোন প্রশ্ন থাকলে, অবশ্যই কমেন্ট করুন 🙂

      1. ভাই আর বাজে ট ৩০.০০০ টাকা কোনটা কিনলে ভালো হবে

  3. ভাইয়া আমি মেডিক্যালের ছাত্রী
    আমার পড়াশুনার জন্য কোন ল্যাপটপ ভালো হবে একটু বলবেন দয়া করে? আপনার লেখাগুলা খুব ভালো লাগে। ধন্যবাদ

    1. রিপ্লাই করতে দেরি হওয়াতে মাফ চেয়ে নিচ্ছি,

      দেখুন একজন মেডিক্যাল ছাত্রী হিসেবে আপনার অনেক ভিডিও দেখার প্রয়োজন হতে পারে, সাথে ইন্টারনেট ব্রাউজিং এবং বেসিক কম্পিউটিং এর প্রয়োজন পড়বে।
      ঠিক কতো জিবি স্টোরেজ থাকতে হবে এটা মূল ব্যাপার নয় আপনার জন্য, তবে আমি অবশ্যই এসএসডি ওয়ালা ল্যাপটপ নিতে বলবো (https://bn.techubs.net/tag/এসএসডি/)- ২৫০জিবি স্পেস হলেই যথেষ্ট, তবে আরো ডাটা সংরক্ষন করার ইচ্ছা হলে পরে পোর্টেবল হার্ডড্রাইভ কিনে নিতে পারেন।

      র‍্যাম অবশ্যই ৪ জিবি হতে হবে তবে ৮ জিবি বেস্ট পারফর্মেন্সের জন্য বেস্ট হবে, বেশি মেমোরি থাকার অনেক গুন রয়েছে।
      প্রসেসর ইনটেল কোর আই ৩ ই যথেষ্ট, তবে চাইলে আই ৫ নিতে পারেন।

      আপনার যেহেতু মিডিয়া প্লে করার জন্যই বেশি কাজে আসবে, তাই অবশ্যই ১০৮০পি রেজুলেসনের ডিসপ্লে দরকার হবে।

      এই কনফিগারের ল্যাপটপ ৩৫-৪৫ হাজারের মধ্যেই পেয়ে যাবেন, আপনার জন্য বাজারে অনেক অপশন রয়েছে, আসুসের দিকে আগে নজর দিতে পারেন, পরে এইচপি, ডেল, তোসিবা ইত্যাদি দেখতে পারেন।

      ধন্যবাদ 🙂

  4. অনেক গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট সম্পর্কে জানলাম। যারা নতুন কম্পিউটার কিনবে তাদের এই বিষয় গুলো জানা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। আপনার অশেষ মেহেরবানি

  5. ভাই আমি একটা লেপটপ কিনতে চাচ্ছি,কি ধরনের কিনবো একটু help করবে plz।
    official-এর জন্য প্রয়োজন,আবার গ্যেমিং এর জন্য হতে হবে।কনটা কিনলে উত্তম হবে ভাই?

    1. কি ধরনের অফিসিয়াল কাজ? মানে শুধু কি ওয়ার্ড প্রসেসিং সফটওয়্যার বা ডাটাবেজ নিয়ন্ত্রন করার জন্য? বা যেকোনো বেসিক অফিসের জন্য? দেখুন অফিসিয়াল কাজের ল্যাপটপ এবং গেমিং ল্যাপটপ দুইটা সম্পূর্ণ আলাদা ব্যাপার। আবার কি ধরনের গেমিং করবেন? এমনি সাধারন চলার মতো গেমিং না হার্ডকোর গেমিং?

      যদি বেসিক অফিস নিয়ন্ত্রন এবং বেসিক গেমিং করার জন্য ল্যাপটপ কিনতে চান তবে প্রসেসর আই ৫ নেওয়ার জন্য পরামর্শ দেব, তবে আই ৭ অবশ্যই উপযুক্ত হবে।
      র‍্যাম সর্বনিম্ন ৮ জিবি হতেই হবে, বেশি হলে আরো ভালো হয়। বেস্ট পারফর্মেন্সের জন্য এসএসডি থাকতেই হবে, তবে হাইব্রিড ড্রাইভ ব্যবহার করতে পারেন, বেশি স্টোরেজের জন্য।

      যদি হার্ডকোর গেমিং করার কথা চিন্তা করেন, তবে আমার মতে ল্যাপটপ না নিয়ে একটি কাস্টম পিসি বিল্ড করলে ভালো হবে, এতে পরবর্তীতে আপনার চাহিদা অনুসারে হার্ডওয়্যার আউগ্রেড করার সুবিধা পাবেন। তবে ভালো গেমিং পারফর্মেন্স ল্যাপটপে পেতে চাইলে এলিয়েনওয়্যার ল্যাপটপ কিনতে পারেন।

      হার্ডকোর গেমিং এর জন্য অবশ্যই কোর আই ৭ লাগবে, প্রসেসর ক্যাশ মেমোরি যতোবেশি নিতে পারেন তোতোই ভালো। গেমিং এর জন্য আমি সর্বনিম্ন ১৬ জিবি র‍্যাম পরামর্শ করবো তবে ৩২ জিবি বেস্ট হবে। আপনার পিসিতে অবশ্যই অবশ্যই এসএসডি থাকতে হবে। সাথে অবশ্যই ডেডিকেটেড গ্রাফিক্স কার্ড বা জিপিইউ থাকতে হবে। মনিটর ১০৮০পি হলে চলবে তবে ৪কে মনিটর গেমিং এর জন্য বেস্ট হবে। তবে আপনি ডুয়াল মনিটরও ব্যবহার করতে পারেন। পিসি বিল্ড করলে যদি ১৬ জিবি র‍্যাম লাগান তবে আমি বলবো ১৬ জিবি একবারে না লাগিয়ে ৮ জিবি ৮ জিবি করে দুইটি র‍্যাম লাগানো ভালো হবে।

      বেসিক অফিসিয়াল কাজের এবং হালকা পাতলা গেমিং ল্যাপটপ ৪৫-৫৫ হাজারের মধ্যে পেয়ে যাবেন, (আরো কম দামেরও রয়েছে)। তবে গেমিং এ লক্ষ্য রাখতে গেলে অবশ্যই একটি ভালো ল্যাপটপ বা পিসি লাগবে যেটার জন্য মুটামুটি খরচ হতে পারে।

      তবে আপনি চাইলে নিজেই এই ব্যাপার গুলো তলিয়ে দেখতে পারেন, এর জন্য টেকহাবস এ অনেক পোস্ট রয়েছে। কম্পিউটিং মেন্যু থেকে পোস্ট গুলো চেক করে নিতে পারেন, তাহলেই আশা করি বুঝে যাবেন, আপনার জন্য ঠিক কোনটি প্রয়োজনীয়।

      ধন্যবাদ 🙂

  6. বেসিক ভিডিও এডিট এবং ইউটিউব ভিডিও এডিট করার জন্য কি পিসি প্রসেসর লাগবে ??

    1. ভিডিও এডিট বলতেই কোর আই ৫ লাগবে, তবে আই ৩ দিয়েও বেসিক চলে যাবে এবং অ্যাডভানস কাজের জন্য অবশ্যই আই ৭ প্রয়োজনীয় সাথে ডেডিকেটেড জিপিইউ!
      আপাতত আই ৩ দিয়ে হলেও র‍্যামটা যাতে বেশি হয়, ভিডিও এডিটিং সফটওয়্যার গুলো র‍্যাম হজম করার জম। যাইহোক, ৮ জিবি র‍্যাম থাকতেই হবে তবে ১৬ জিবি বেস্ট!
      আশা করি বোঝাতে পেড়েছি 🙂
      আরো প্রশ্নের জন্য অবশ্যই কমেন্ট করুন 🙂
      ধন্যবাদ 🙂

  7. ভাইয়া, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, প্রোগ্রামিং এসবের জন্য কেমন ল্যাপটপ প্রয়োজন একটু ডিটেইলস বলবেন? 😊

    1. ভাই ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এবং প্রোগ্রামিং এর কাজে গ্রাফিক্স ডিজাইন বা ভিডিও এডিটিং এর মতো হাই কনফিগ পিসি থাকার প্রয়োজনীয়তা নেই।
      অল্প বা মিডিয়াম বাজেটের পিসি দিয়ে প্রো টাইপের কাজ করতে পারবেন। আপনার দামী গ্রাফিক্স কার্ডের প্রয়োজনীয়তা নেই, তাই অনেক খরচ বেঁচে যাবে। ইনটেল কোর আই ৩ বা কোর আই ৫ প্রসেসর এবং ৮ জিবি র‍্যামের ল্যাপটপ আপনার কাজ ধুমছে সম্পূর্ণ করতে সহায়তা করবে।
      ডিসপ্লে ১৫ থেকে ১৭ ইঞ্চির মধ্যে পেয়ে যাবেন সাথে সেকেন্ডারি মনিটর ব্যবহার করতে পারেন।
      ৪০-৪৫ হাজারের মধ্যে আপনার কাজের জন্য ঠিকঠাক ল্যাপটপের বহু অপশন পেয়ে যাবেন…

      ধন্যবাদ 🙂

  8. ভাই, ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট এর জন্য আই মিন টু সে দ্যাট কোডিং করার জন্য কি ধরনের কনফিগারেশন এর ল্যাপটপ ইউজ করতে পারি….????
    তবে আমি ডেলের inspiron N5559 মডেলের একটি দেখেছি, যদি এই ব্যাপারে একটু ডিটেলসে বলতেন??

  9. কম্পিউটার কিনতে চাচ্ছি। তাই গুগল করলাম। ইংরেজিতে অনেক অনেক আর্টিক্যাল। একেক জায়গায় একেক রকম ব্যাখ্যা এবং কনফিউজিং। তাই বাংলাতে সার্চ করলাম- যদি কিছু পাই। আপনার লেখা পড়ে অনেক ভাল লাগল। খুবই সুন্দরভাবে বুঝিয়েছেন।

    ব্যক্তিগতভাবে আমি একজন কারিকুলাম ডেভেলপার এবং ফ্রীল্যান্সার। অ্যানিমেশন বানানোর জন্য আইডিয়া কনটেন্ট তৈরি করে দেই। সেজন্য ২০০৮ সালে পিসি কিনেছি।পিসি কেনার বিষয়ে আমি একটু সৌখিন। লেটেস্ট মডেল গুলোর একটি নিয়েছিলাম। Intel E4600 এর Core 2 Duo 2.40 Ghz. আইডিবিতে গিয়ে বলেছিলাম সবচেয়ে ভাল প্রসেসর দিয়েন। তাই দিল!! আপনার লেখা পড়ে জানলাম আমার প্রসেসর টা তখনই চতুর্থ জেনারেশনের। অনেক ধন্যবাদ।

    এবার আমি চাচ্ছি পিসি আপগেড। তাই আপনার লেখা পরে সিদ্ধান্ত নিলাম কোর আই ফাইভে যাব। সিক্স জেনারেশন। যদি দয়া করে আমাকে আরেকটু সাহায্য করতেন; খুবই উপকৃত হতাম। (কমেন্ট সেকশনে আপনার রিপ্লাইগুলো পড়ে ভরসা পাবার মত জায়গা পেয়েছি। হাহাহা)

    ১) কোর আই ফাইভে সবচেয়ে ভাল প্রসেসর মডেল নাম্বার
    ২) এর সাথে কম্পেটিবিলিটি রয়েছে; এরকম সবচেয়ে ভাল পারফরমিং মাদারবোর্ড মডেল (ইন্টেলেই ভরসা পাই। ফক্সকন বা আসুস বা অন্য কোন ব্র্যান্ডে যেতে চাচ্ছিনা)
    ৩) ভবিষ্যতে ভাল জিপিইউ কিনে যেন লাগাতে পারি; সেজন্য ভাল পাওয়ার সাপ্লাই মডেল নং
    এবং
    ৪) দশ থেকে পনের হাজারের মাঝে পাওয়া যেতে পারে এরকম ভাল জিপিইউ (যেটা অনেক ক্ষেত্রে বিশ পচিশের জিপিইউ এর কাছাকাছি পারফরমেন্স দিতে পারে- ঠিক যেমন ইন্টেল ডুয়াল কোর তার প্রায় দ্বিগুণ দামের কোর টু ডুয়ো এর পারফরমেন্সেরই ইকুইভেলেন্ট) (কিংবা ৭২০ পিক্সেলের মাঝে সবচেয়ে ভাল পারফরমেন্স দেবে এবং ১০৪০ এও মোটামুটি ভাল)

    সাহায্যের জন্য অনেক অনেক অগ্রিম ধন্যবাদ। এবং আপনাদের ওয়েবসাইটে সাবস্ক্রাইব করে রাখলাম রিপ্লাই এর জন্য।

    ভাল থাকবেন, ভাই!!

  10. ভাইয়া ল্যাপটপ এর কি প্রোসেসর বারানো যাবে?

  11. Intel HD Graphics 5500 বা Nvidia 920m 2 GB dedicated
    graphics এর মদ্ধে দুটিই কি সমান নাকি ২ জিবি বেশি বড়?

  12. ভাই core i3 এর জন্য কোন:মডেল,জেনেরেশন,ক্যাশ মেমোরী ভালো হবে জানালে ভাই কৃতজ্ঞ থাকব।

    1. বর্তমানে ইনটেল কোর আই৩ 7320 সবচাইতে লেটেস্ট প্রসেসর মডেল;
      ক্লক স্পীড; ৪.১০ গিগাহার্জ
      ২ কোর এবং ৪ থ্রেড প্রসেসর
      সাথে ৪এমবি ক্যাশ মেমোরি রয়েছে
      আর এই প্রসেসরটি ১৪ ন্যানোমিটারে প্রস্তুত।
      সর্বউচ্চ ৬৪জিবি র‍্যাম সহ ডিডিআর ৪ মেমোরি লাগাতে পারবেন।
      প্রসেসরের সাথে Intel® HD Graphics 630 রয়েছে এবং ৪কে রেজুলেসন সমর্থন করে।

  13. আমার কোচিংয়ের জন্য একটা ল্যাপটপ প্রয়োজন। কিন্তু আমার বাজেট বেশী না হওয়াতে সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না কোন ল্যাপটপ টা নিলে ভালো হবে। 20,000 টাকার মধ্যে নিতে চাচ্ছিলাম। একটু সাহায্য করবেন আশা করি 🙂

    1. আপনার বাজেট লো হলেও, এর মধ্যেই আপনি অনেক ভালো অপশন পেয়ে যাবেন। আসুস, লেনেভো, ডেল সহ সকল ল্যাপটপ ব্র্যান্ডেই এই বাজেটের ল্যাপটপ রয়েছে। সাধারনত এই বাজেটে ইনটেল পেন্টিয়াম বা সেলেরন সিরিজের প্রসেসর পাওয়া যায়, তবে যদি এএমডি প্রসেসর অপশন থাকে তবে সেটা বেস্ট হবে, কেনোনা লো বাজেট হিসেবে এএমডি প্রসেসর ভালো পারফর্মেন্স দেয়।
      র‍্যাম ২/৪জিবি পেয়ে যেতে পারেন এবং সাথে ৫০০জিবি হার্ডড্রাইভ নিশ্চিত পাবেন।

      ASUS X441SA-N3060 INTEL CELERON DUAL CORE PROCESSOR
      এবং LENOVO IP 110 CELERON DUAL CORE 15.6″
      মডেল দুইটি দেখতে পারেন। তবে মার্কেটে আরো ভালো অপশন পেতে পারেন।

      আরো কোন প্রশ্নে লগইন করুন; http://qna.techubs.net

  14. vaia,
    at 1st thank dicchi apnak apnar ai post er jonno bcz ami computer er jogot e notun..
    At present I am a student of Computer science & Engineering…
    so,amk urgent ekta computer nite hobe.
    tai ekhon ami jante cacchi amar jonno konti suitable -pc/laptop.
    waiting for ur ans

  15. ভাইয়া আমি eee তে গ্রাজুয়েশন শুরু করেছি। আমার কেমন কনফিগারেশনের পিসি লাগবে?

    1. ইনটেল কোর আই৩ হলেই হবে, ৪জিবি র‍্যাম লাগবে সর্বনিম্ন। তবে এএমডি প্রসেসর হলেও হবে।
      আর তেমন কিছু দেখার নেই!

  16. ভাইয়া আপনার suggestion গুলো অসম্ভব দারুন।Please একটু help করুন।আমার computer এর processor টা intel eleron.আমি কি এটা change করে i3 লাগাতে পারবো……Please… thank’s…
    Mother board হচ্ছে ( Foxconn G31mv )

    1. ভাইয়া অনেক ধন্যবাদ Reply টা দেওয়ার জন্য। আসলে আমি চাচ্ছি যে আমার processor টা change করার জন্য।
      আমি কি core 2 duo processor এর সাথে 4GB RAM upgrade করতে পারবো ? দয়াকরে একটু বলবেন please….

      আনেক ধন্যবাদ………

      1. হ্যাঁ আপনার মাদারবোর্ড ৪জিবি র‍্যাম সমর্থন করে কিন্তু ডিডিআর২ অনলি।
        আমি রেকোমেন্ড করবো আপনি আগে মাদারবোর্ডটা পাল্টান, অনেক পুরাতন হয়ে গেছে, আর কতো চালাইবেন?
        ডিডিআর২ মেমোরি আজকের দিনে অনেক ওল্ড, ১৫/২০ হাজার টাকার মেশিনেও আজকে ডিডিআর৩ মেমোরি পাওয়া যায়।
        মাদারবোর্ডটা আপগ্রেড করে আই৩ লাগিয়ে নিন, খুব একটা বেশি খরচ আসবে না, তবে নতুন মাদারবোর্ড কেনার সময় একটু লক্ষ্য রাখবেন, যাতে পরবর্তীতে হার্ডওয়্যার আপগ্রেড করা যেতে পারে।
        ধন্যবাদ 🙂

        1. ভাইয়া ,
          ………..প্রসেসর i3 এর সাথে মাদার বোর্ড কোন কোম্পানির টা নিলে একটু ভাল হবে বলবেন please…
          Normal use করার জন্য। Thank’s……..

          1. মাদারবোর্ড প্রায় সবাই ভালো;
            আসুস অথবা গিগাবাইট দেখতে পারেন।
            গিগাবাইট অনেক পপুলার মাদারবোর্ড নির্মাতা কোম্পানি। বিভিন্ন প্রাইজ রেঞ্জের মধ্যে মাদারবোর্ড পেয়ে যাবেন। তাছাড়া আপনি চাইলে যেকোনো ভালো কোম্পানির মাদারবোর্ড লাগাতে পারেন।

          2. ভাইয়া,
            অনেক অনেক ধন্যবাদ ………..আপনার জন্য শুভকামনা রইল…

  17. ভাইয়া হেল্প মি প্লিজ,,
    HP Notebook 15 AY101TU (7th Gen Core i3 )
    এইটা ল্যাপটপ নিতে চাচ্ছি, এটা দিয়ে কি ধরনের কাজ করা যাবে, জানালে উপকৃত হতাম।

    1. বেসিক ইউজের জন্য খুব ভালো হতে পারে। স্পীড মোটামুটি ভালো পাবেন। ইন্টারনেট ব্রাউজ, বেসিক ভিডিও এডিট, হালকা পাতলা গ্রাফিক্স ডিজাইন সবই চলবে, তবে রেন্ডার হতে সময় লাগবে অনেক। ছোট খাটো ৭/৮ জিবি’র গেম গুলো চলতে পারে, তবে উইন্ডোজ স্টোরের প্রায় সব গেমই চলবে আরামে।

  18. Etabs, Autocad এসবের জন্য কি ল্যাপটপ নিতে পারি অথবা বাজেট কত হতে হবে?

  19. ভাই আমি Asus x454la i3 5th generation কিনতে চাচ্ছি, ভবিষ্যতে কি আমার সফটওয়্যারের বা windows এর কোন সমস্যা হবে? বেসিকলি ল বাজেট হওয়ায় ৷

  20. ৬০ হাজার টাকায় কি ১৬ জিবি রেম +২ জিবি গ্রাফিক্স লেপ্টপ পাওয়া যাবে? কিছু সাজেস্ট করুন প্লিজ

  21. ভাই আমি নতুন ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনেছি ।
    আমার কম্পিউটার এ আছে
    Core – Amd fx 4300
    Gigabyte mother board
    Ram-ddr3
    1 tb thoshiba hard disk
    আমার কম্পিউটার 30 min চালু রাখলে গরম হোচযে ।
    নতুন মেশিন বলে কি গরম হাচছে ??

    1. দেখুন, বর্তমানে গরমকাল চলছে, আর এখন এমনিতেই অনেক গরম। এই গরমে যেকোনো ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইজ গরম হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক।
      তারপরেও যদি আপনি মনে করেন, আপনার সিস্টেম একটু বেশিই গরম হচ্ছে তাহলে ভালো কেসিং লাগাতে পারেন যেখানে কুলিং সিস্টেম অনেক ভালো, তাছাড়া প্রসেসর ফ্যান পরিবর্তন করেও দেখতে পারেন।

  22. ভাই আমি গ্রাফিক্স এবং পিন্টিং কাজ করবো,এখন কোনটা হলে ভালো হয়।

  23. ভাই আপনার পোস্টি পড়লাম খুব ভাল লাগল. কিছু শিখতে পারলাম. আর এর জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ.
    ভাইয়া আমার প্রশ্ন হল যে, আমি ইন্টারনেট,গান ,গ্যাম এর জন্য একটি laptop কিনতে চাইছিলাম.
    বিশেষ করে ইন্টারনেটের জন্য… আর আমার বাজেটও বেশিনা মাত্র 30000. টাকা…
    এই বাজেটে আমি সবচেয়ে ভাল ও টেকশয়ী এবং বিশস্ত কোন laptop ক্রয় করব..যদি কষ্ট করে বলতেন ভাই.

  24. ভাই, আমি ৪০,০০০ হাজার টাকা দিয়ে একটি Desktop PC ক্রয় করতে চাই ৷

  25. অামি cor i3 3rd G কিনতে চাই। অামি গেমস খেলতে like করি। এর সাথে কি কি থাকলে ভালে হবে। বাজেট ১৩০০০/১৪০০০। 3rd G কি কোন সমস্যা হবে?

    1. আজকের দিন হিসেবে থার্ড জেনারেশন অনেক পুরাতন, কিন্তু আপনার বাজেট যেহেতু অনেক কম তাই ইনটেলের দিকে না গিয়ে আরো ৪-৫ হাজার টাকা বাজেট বাড়িয়ে এএমডি’র দিকে যাওয়া ভালো হবে। আপনি যেহেতু গেমিং করতে চান, এক্ষেত্রে এই পয়েন্টে এএমডি একটু ভালো হবে।

      আর থার্ড জেনারেশনে কোন সমস্যা নেই, আমার প্রথম ল্যাপটপও থার্ড জেনারেশনের ছিল, কিন্তু থার্ড জেনারেশনের অনেক ভালো মডেল ছিল সাথে ৮জিবি র‍্যাম, ২জিবি গ্রাফিক্স ছিল, ফলে গেমিং এ বুস্ট পেতাম।

      আপনার এই বাজেটে ২জিবি র‍্যাম পেতে পারেন, যদি ৪জিবি পান সেটা ডিডিআর৩ এর কোন দুর্বল মডেল হতে পারে। ২ জিবি র‍্যামের সাথে আপনি ভালোভাবে কিছুই করতে পারবেন না।
      তাই বাজেট বৃদ্ধি করুণ আর এএমডি’র দিকে চলে যান।

      আর কোন প্রস্ন থাকলে অবশ্যই রিপ্লাই করুণ।
      ধন্যবাদ 🙂

  26. আমি একটা ল্যাপটপ কিনতে চাচ্ছি।।। বাজেট কম।।। আমি চাচ্ছি সবকিছু ডেডিকেটেড হবে।। পরে যেন আপগ্রেড করা যায় হাইজলি।।।। এরকম ল্যাপটপ কত টাকার মধ্যে পেতে পারি।।। আপনার আইডিয়া মতে দয়া করে জানাবেন।।।

    1. এখন প্রায় যেকোনো ল্যাপটপেরই র‍্যাম, হার্ডড্রাইভ, ডিভিডি, ব্যাটারি ইত্যাদি আরামে চেঞ্জ বা আপগ্রেড করা যায়। মুটামুটি ২০ হাজার থেকে শুরু করে সকল ল্যাপটপে আপগ্রেড অপশন পেয়ে যাবেন।
      আসুস বা ডেলের দিকে দেখতে পারেন, যদি পছন্দ না হয় তবে এইচপির দিকে দেখতে পারেন।
      ধন্যবাদ 🙂

  27. অামি নেটওয়ার্ক এর কাজের জন্য কোনটা ভালো হবে।

  28. আসসালামু আলাইকুম ভাইয়া।
    আমি internet আর movie দেখার জন্য একটি laptop কিনতে চাই,
    একটা ষ্টাইলিশ laptop এর নাম বলুন,
    40 হাজার এর মধ্য।

    1. আপনি ASUS X556UR-7100U দেখতে পারেন।

      কনফিগ;
      প্রসেসর; ইন্টেল কোর আই৩ ৭ম জেনারেশন
      হার্ডড্রাইভ; ১ টেরাবাইট
      র‍্যাম; ৪ জিবি ডিডিআর৪
      ডিসপ্লে; ১৫.৬ ইঞ্চি
      ডিসপ্লে রেজুলেসন; ১৯২০x১০৮০
      গ্রাফিক্স; NVIDIA GeForce 930MX, with 2GB VRAM

      মুভি, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, হালকা পাতলা ফটো এডিট, ভিডিও এডিট, বেসিক গেমিং এর জন্য খুবই ভালো হবে। বিশেষ করে ডিসপ্লে রেজুলেসনের জন্য এই ল্যাপটপ রেকোমেন্ড করলাম। দেখতে পারেন।

  29. Vai, ami graphics, freelancing and internet er kaj korbo. Amar budget 20000/25000. desktop nite casci. kon brand kinle valo hobe, details janale kritoggo thakbo.

    1. ব্র্যান্ড ডেস্কটপ ভালো হবে না!
      আপনাকে কাস্টম পিসি বিল্ড করতে হবে;
      আপনার বাজেট অনুসারে নিচের কনফিগ পেতে পারেন,

      প্রসেসর; কোর আই৩, ৬জেন
      র‍্যাম; ৪জিবি/ ডিডিআর৪
      হার্ড ড্রাইভ; ৫০০ জিবি/১টিবি
      মনিটর; এইচডি রেজুলেসন

  30. vaiya ami ekta dekstop kinte chassi but bujtesi na kivabe ki korbo.ami Microsoft ofiice er kaj korbi r ektu ektu game khelbo r hd video dekhbo so vaiya plzz bolen amake ki korte hobe r koto taka lagbe..

  31. আমি গেম খেলতে pc কিনব শুধু pc জননো ৩০০০০টাকা বাজেট তো আমি কি prosessor ,motherboard,ram নিতে পারি

  32. ভাই আমি 25000বাজেটের মধ্যে একটা ল্যাপটপ নিতে চাচ্ছি।ইন্টারনেট ব্রাউজিং (ফ্রিল্যান্সিং) আর মাইক্রোসফট অফিস পাশাপাশি মুভি দেখা ইত্যাদি কাজের জন্য।কোন বিষয়ের উপর খেয়াল রাখতে হবে আর কোন ব্রান্ড ভাল হবে?

      1. ভাইয়া বুঝলাম তো।কিন্তু Asus এর কেমন কনফিগারেশন তা একটু বলেন প্লিজ।

  33. ভাই আমি ৪০০০০বাজেটের মধ্যে একটা
    ল্যাপটপ নিতে চাচ্ছি।ইন্টারনেট ব্রাউজিং
    (ফ্রিল্যান্সিং) আর মাইক্রোসফট অফিস
    পাশাপাশি মুভি দেখা ইত্যাদি কাজের
    জন্য কোন ব্রান্ড ভাল হবে?

  34. ভাই আমি এবার এইচএসসি তে উঠলাম। পাশাপাশি কম্পিউটার শিখছি। এখন গ্রাফিক্স এর কাজ, সামান্য গেম, ভিডিও এডিটিং এবং এইচডি ভিডিও দেখার জন্য একটা কম্পিউটার কিনতে চাই। আর একটা কথা আমার বাজেট ৩০০০০ – ৪০০০০ টাকা। কয়েকটা ভালো কম্পিউটার সাজেস্ট করেন?

    1. আপনার বাজেটে ভালো অপশন পেয়ে যাবেন;
      প্রসেসর; কোর আই ৩ ৭ম জেনারেশন
      র্যাম; ৪ জিবি ডিডিআর ৪
      হার্ড ডিস্ক; ১ টেরাবাইট
      ইনটেল গ্রাফিক্স ৬২০ পাবেন, সাথে কিছু মডেলে ২জিবি ভিডিও র্যাম পাবেন, ডেডিকেটেড!

      প্রথমে আসুস এর দিকে দেখুন, তারপরে এসার, লেনোভো ইত্যাদি।

  35. ভাইয়া আমাকে ৩৫০০০ এর ভিতর এইচপি এর একটা ভাল রাফ ইউজ এর জন্য ল্যাপ্টপ সাজেস্ট করেন

  36. ভাইয়া, CSE এর স্টুডেন্ট এর জন্য কোনটা হলে হবে। Asus better নাকি HP better.

    Hp i5, 7th generation দেখে আসছি, নিতে চাচ্ছি, দাম ৫০ হাজার, এই দামে কোনটা ভালো ASUS নাকি HP.

    বাজেট ৫০ হাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *